আজ ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : জানুয়ারি, ২৩, ২০২২, ১:৩২ অপরাহ্ণ

হাতীবান্ধায় সিজারের সময় নবজাতকের মাথায় আঘাত, মৃত্যু!

সেলিম সম্রাট, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিজার করার সময় শিশুর মাথায় আঘাত করা হয়েছে। এতে সদ্য ভুমিষ্ঠ শিশুটি মারা গেছে।লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা শহরের প্রাণকেন্দ্রে আমতলা বাজারে অবস্থিত হেলথ্ এন্ড মেডিকেয়ার ফ্লোরা ডেন্টাল কেয়ারে শনিবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। আনারি চিকিৎসক দিয়ে সিজার করায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ। এ নিয়ে ওই ক্লিনিক ও চিকিৎসকের উপর নবজাতকের অভিভাবক ও স্বজনরা ক্ষিপ্ত।

জানা গেছে উপজেলার সিংগীমারী ইউনিয়নের ধুবনী লাল স্কুল এলাকার শাহাদুলের স্ত্রীর প্রসব বেদনা শুরু হলে শনিবার দিবাগত রাতে হাতীবান্ধার আমতলা বাজার এলাকায় অবস্থিত হেলথ এন্ড মেডিকেয়ার ফ্লোরা ডেন্টাল কেয়ারে নিয়ে আসেন।

উপস্থিত রুগীর খালু নাজীর হোসেন বলেন কর্তব্যরত ডাক্তার রাজিব হোসেন আল্ট্রা করে বলেন সন্তানের হার্ডবিড ঠিক আছে তবে এখনিই সিজার করতে হবে, ডাক্তারের কথামত সিজারের ব্যাবস্থা করা হয়। কিন্তু এক ঘন্টা পর মৃত্যু সন্তান নিয়ে এসে বলেন বাচ্চার মৃত্যু হয়েছে বাড়িতে নিয়ে যান এবং সন্তানের মাকে যেন না বলেন বাচ্চার মৃত্যু হয়েছে।

এ সময় রাতে ঐ ক্লিনিকের সামনে স্বজনদের আহাজারি ও চিল্লাচিল্লি করতে শোনা যায়।
অভিযোগের বিষয়ে ডাক্তার রাজীবের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি খাঁজা ইউনুস আলী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হতে পাশ করেছি আমি সার্জারী করি এটা মুলত সিজারের কেস ছিলো।এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন কেউতো ইচ্ছে করে এ রকম করেনা।
এদিকে ক্লিনিকের মালিক পক্ষ ওই বাচ্চার বাবা সহ পরিবারের লোকজনকে ম্যানেজ করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানা অফিসার্স ইনচার্জ এরশাদুল আলম বলেন ঘটনাটি লোকমুখে শুনেছি। এখনো কোন অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন