আজ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : ডিসেম্বর, ২৬, ২০২১, ৭:৩৭ পূর্বাহ্ণ

ভোলায় কৃষি কাজে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে

ঢাকা : ভোলা জেলায় কৃষি কাজে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। একদিকে আমন ধানের মাড়াই, ঝাড়া, সিদ্ধ ও রোদে দেওয়া অন্যদিকে বোরোর বীজতলা তুলতে বেড়েছে নারীর কর্মতৎপরতা। পৌষের শীতে এখন আমন ধান কাটা শেষ পর্যায়ে চলে আসায় এখানে কৃষি কাজে ব্যস্ত নারীরা। ঘরের কাজের পাশাপাশি এসব কৃষি কাজে যুক্ত হয়ে বাড়তি আয়ে খুশি নারীরা।

অগ্রাহায়ণের মাঝামাঝি সময় থেকে আমন ধান কাটা শুরু হয়ে এখন শেষ পর্যায়ে। মাঠ থেকে আমন ধান কেটে বাড়িতে আনার পর বোঝা মুক্ত হয় কৃষক। আর শুরু হয় কৃষাণীর কর্ম ।ধান মাড়াই করা, ঝাড়া, স্দ্ধি ও শুকানোর কাজ থেকে শুরু করে সকল কাজ করতে হয় নারীদের। দিনরাত ব্যস্ত সময় কাটান তারা। এ সময় গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে মজুরীর বিনিময়ে শ্রম দিচ্ছেন অসংখ্য নারী। গ্রামীণ নারী সমাজের সহজ কর্মের মাধ্যমে আয়ের এক দুয়ার খুলে যায় ধানের মৌসুমে।

জেলার বিভিন্ন উপজেলার গ্রামগুলোতে চোখে পড়ে ধান মাড়াইয়ের এসব চিত্র। গ্রামের বাড়িগুলোর বিশেষ করে গৃহস্ত বাড়ির উঠানে ধানের গোলা স্তুপ করে রাখা হয়। আবার কোন কোন বাড়িতে দেখা যায় বড় পাত্রে ধান সেদ্ধ করছেন নারীরা। কিংবা উঠানের রোদে শুকাতে দেয়া হয়েছে আমন ধান। এসময় সেদ্ধ ধানের গন্ধে মৌ মৌ করে চারপাশ।

জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার দেউলা গ্রামের নারী শ্রমিক লুতফা নাহার, মিনারা বেগম ও লাইলি আক্তার জানান, অন্য সময়ে তারা বিভিন্ন বাসা বাড়িতে ঝি’র কাজ করেন। কিন্তু পৌষের এ সময়টাতেই ধানের কাজ করেন। সারাদিন কাজ করে ২ থেকে ৩’শ টাকা কিংবা সমপরিমাণ চাল পাওয়া যায়। এছাড়া সকালে ও দুপুরে খাবার পাওয়া যায়। তাই ধানের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

অন্যদিকে বোরোর বীজতলা তুলতে ও রোপণেও নারীর ব্যস্ততা বেড়েছে। একজন নারী শ্রমিক ২০মুঠি  বীজ তুলতে পারলে পাবেন ২৫-৩০ টাকা। এখানে সারা দিন কাজ করে ২’শ টাকা পর্যন্ত আয় করছেন গ্রামীণ এসব দরিদ্র নারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন