আজ ২৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : জানুয়ারি, ২, ২০২২, ৬:৫৯ পূর্বাহ্ণ

ভোটে নির্বাচিত হয়ে ২৫০ ডেকচি বিরিয়ানি খাওয়ালেন চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রভাষক মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন প্রায় ২৭ হাজার মানুষের অংশগ্রহণে গণভোজ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। গণভোজে ১০টি গরু দিয়ে প্রায় ২৫০ ডেকচি বিরিয়ানি রান্না করা হয়। শনিবার (১ জানুয়ারি) সোমভাগ ইউনিয়নের দেপাশাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এই বিশাল গণভোজের আয়োজন করেন প্রভাষক আওলাদ হোসেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ বেনজীর আহমেদ গণভোজের উদ্বোধন করেন।

এ সময় তিনি বলেন, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রভাষক আওলাদ ধামরাইয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। অতীতে এতো মানুষের মিলনমেলা চোখে পড়েনি। এ ধরনের আয়োজন কেউ করেছে বলে মনেও হয় না। যেখানে দলমত নির্বিশেষে মানুষ একত্রিত হয়ে জনসমুদ্রে পরিণত করেছে।

চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচন করে পরাজিত হয়ে মসজিদের টিন, রাস্তার ইট তুলে নিয়ে যাওয়ার মত ঘটনাও রয়েছে। কিন্তু নির্বাচিত হয়ে ১০টি গরু জবাই করে গণভোজের আয়োজন এটাই প্রথম বলে মনে করছে ধামরাইবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিশাল এই আয়োজনে ১০টি গরু জবাই ও মাংস তৈরিতে প্রায় ৫০ জন কশাই এবং নারী-পুরুষ মিলিয়ে ৯০ জন বাবুর্চি রান্নার কাজ করেন। দেপাশাই খেলার মাঠ ও ঈদগাহ মাঠে এক সঙ্গে ৫ হাজার লোকের খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। দূর থেকে আসা লোকজনের জন্য গাড়ির ব্যবস্থাও করা হয়েছিল এই আয়োজনে।

এলাকাবাসী বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে নয়, একজন মানুষ হিসেবে আওলাদ হোসেন বড় মনের মানুষ। তাকে আমরা চেয়ারম্যান হিসেবে পেয়ে ধন্য। ধামরাইয়ে একসঙ্গে এতো লোক কখনও খায়নি। সারাদেশেও খেয়েছে কিনা আমাদের সন্দেহ হয়।

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রভাষক মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন বলেন, কিছু ভোটের ব্যবধানে আমার বাবা অতীতে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে হেরে যান। বাবার স্বপ্ন পূরণে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে আমি নির্বাচিত হয়েছি। জনগণের ভোটে আমি নির্বাচিত হয়েছি। তাদের ভোটে যে সম্মান আমি পেয়েছি তাতে এই আয়োজন তাদের জন্য কিছুই না। তাদের কাছে আমি চিরঋণীই থাকব। আমি আমার ইউনিয়নের এমন উন্নয়ন করতে চাই যেন তা কয়েক প্রজন্মের মুখে মুখে দীর্ঘদিন থাকে। আমি সবার দোয়া ও সহযোগিতা চাই।

এ সময় ধামরাই পৌরসভার মেয়র আলহাজ গোলাম কবির মোল্লা, পৌরসভার কাউন্সিলর, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ধামরাই উপজেলার সোমভাগ ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রভাষক মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আজহার আলীকে হারিয়ে জয়লাভ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন