আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : ডিসেম্বর, ১৮, ২০২১, ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ

ভাসানচরের পথে আরও ৬০০ রোহিঙ্গা

ঢাকা : শনিবার সকাল ১০টার পর চট্টগ্রাম বোট ক্লাব থেকে ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে রোহিঙ্গাবোঝাই নৌ-বাহিনীর দুটি জাহাজ। সেখানে ৬০০ রোহিঙ্গা রয়েছে।এর আগে শুক্রবার বিকেলে তাদের কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরগুলো থেকে বাসে করে উখিয়া ডিগ্রি কলেজের মাঠ হয়ে নেওয়া হয় চট্টগ্রামে।শনিবার দুপুরে ওই দ্বীপে পৌঁছানোর কথা রয়েছে তাদের।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ভাসানচরে অবস্থানরত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের প্রতিনিধি (সিআইসি) নওশের ইবনে হালিম বলেন, এবারে ৬০০ রোহিঙ্গা চট্রগ্রাম থেকে ভাসানচরের উদ্দেশে নৌবাহিনী দুটি জাহাজে করে রওনা দিয়েছে। তাদের সবার দুপুরে দ্বীপে পৌঁছনোর কথা রয়েছে। আমরা সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। এখানে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গে আনুসাঙ্গিক কার্যক্রম শেষে তাদের নিজ নিজ সেন্টারে তুলে দেওয়া হবে।

এদিকে গত বছরের ডিসেম্বর থেকে সাত দফায় প্রায় ২০ হাজার রোহিঙ্গাকে সরকার ভাসানচরে পাঠায়। এছাড়া গত বছর মে মাসে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টাকালে ৩০৬ রোহিঙ্গাকে সমুদ্র থেকে উদ্ধার করে সেখানে নিয়ে রাখা হয়।

অতিরিক্ত ত্রাণ ও শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনার শামসু দ্দৌজা নয়ন বলেন, অষ্টম দফায় ৬০০ জন রোহিঙ্গা নৌবাহিনীর জাহাজ চট্টগ্রাম থেকে ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। তারা আজ শনিবার দুপুরে সেখানে পৌঁছাবেন।

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে রোহিঙ্গা স্থানান্তরের জন্য সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ৩ হাজার ৯৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ১৩ হাজার একর আয়তনের ওই চরে এক লাখ রোহিঙ্গা বসবাসের উপযোগী ১২০টি গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করা হয়েছে। ভাসানচরের পুরো আবাসন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন ও ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের সেনাদের অভিযান থেকে প্রাণে বাঁচতে দেশটির রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়ায় শরণার্থী শিবিরগুলোতে বসবাস করছেন। তাদের বেশিরভাগই ২০১৭ সালে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নৃশংস অভিযানের সময় পালিয়ে এসেছিলেন। কক্সবাজারে শরণার্থীদের চাপ কমাতে দুই বছর আগে অন্তত ১ লাখ রোহিঙ্গাকে নোয়াখালীর হাতিয়ার কাছে মেঘনা মোহনার দ্বীপ ভাসানচরে স্থানান্তরের পরিকল্পনা নেয় সরকার।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন