আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : আগস্ট, ২২, ২০২৩, ২:৪৩ অপরাহ্ণ

প্রতারণা করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে সৌদিতে পাড়ি জমালেন প্রতারক সেলিম মিয়া, সর্বস্ব হারিয়ে বিপাকে ভুক্তভোগীরা, সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা!

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মধ্যপ্রাচ্যে কর্মী নেওয়ার কথা বলে ১৩ টি জাল ভিসা দিয়ে বিভিন্ন কিস্তিতে মোট ৩৯ লক্ষ টাকা হাতিয়ে সৌদি আরবে পাড়ি জমালেন সেলিম মিয়া (৩৫) নামের এক প্রতারক। তার জাতীয় পরিচয় পত্র নং – ১৯৮২ ৯৩১৯ ৫৭৭ ১০৩ ৭৪৯, পাসপোর্ট নং বিএইচ – ০৬৬০৭৯৬, টাঙ্গাইল আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ইস্যু তারিখ ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৫, সৌদি আরবের ভিসা নং – এ ১৭৮০৬৬৮১, সে টাঙ্গাইল জেলার সদর উপজেলার নন্দ বালা গ্রামের মো. সায়েদ আলীর ছেলে।

পরে প্রতারণার অভিযোগে অভিযুক্ত সেলিমের বড় ভাই মো. রফিক মিয়া ওরফে রফিকুল (৩৮), সেলিম মিয়া (৩৫), সেলিমের স্ত্রী মিতা বেগম (৩০), মো. মিজান উদ্দিন (৩৫), পিতা অজ্ঞাত, সেলিমের পিতা মো. সায়েদ আলী মিয়া (৬২), মৃত আব্দুল হামিদ ভূঁইয়ার ছেলে ইসলাম ভূঁইয়া (৩৫) এর নামে টাঙ্গাইল সদর আমলী আদালতে ভুক্তভোগী মো. শরীফুল ইসলাম (৩১) নিজে বাদী হয়ে একটি সি. আর মামলা নং – ৭৫/২০২২ ধারা (৪০৬ / ৪২০ দঃ বিঃ) দায়ের করেন। ভুক্তভোগী মো. শরীফুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পাইককান্দি ইউনিয়নের পাইককান্দি গ্রামে।

সে একই গ্রামের মো. মঞ্জুর হোসেন সিকদারের ছেলে। এছাড়াও প্রতারক সেলিম মিয়ার নিকট ভিসা বাবদ ২৬ লক্ষ টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পাইককান্দি ইউনিয়নের রিবু সিকদারের ছেলে কাতার প্রবাসী মো. জিকরুল সিকদার। পরে তিনি প্রতিকার চেয়ে গত ১২ জানুয়ারি ২০২২ ইং তারিখে টাঙ্গাইল পুলিশ সুপার একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এদিকে অন্যদের সাথে ভিসা জালিয়াতির দায়ে মধ্যপ্রাচ্যের কাতার দেশে হাজত বাসের পর বাংলাদেশে ফিরে সৌদি আরবে পাড়ি জমালেন সেলিম মিয়া।

যদিও উক্ত মামলায় তার বিরুদ্ধে উক্ত মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য আসামীরা তদবির করে জামিনে রয়েছেন বলে গণমাধ্যমকে জানান ভুক্তভোগীরা। সংসারের অভাব মেটাতে জমি – জমা বিক্রি সহ ধার-দেনা করে সেলিম মিয়ার কথা মতে তার পরিবারের লোকজনদের নিকট পাসপোর্ট ও নগদ অর্থ দিয়ে সর্বস্বান্ত হয়েছেন একাধিক পরিবার। সর্বস্ব হারিয়ে বর্তমানে মানবেতর জীবন- যাপনকারী ভুক্তভোগীরা তাদের অর্থ ও জমা দেওয়া পাসপোর্ট ফিরে পেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন