আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : আগস্ট, ২, ২০২৩, ৫:২২ অপরাহ্ণ

গোপালগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেওয়া আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ!

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সাতপাড় কালিভিটা গ্রামে মধুমতি নদীর পাড়ে ভূমিহীন ও গৃহীনদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের ঘরে পোড়া মাটি সদৃশ ইট ব্যবহার করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. আলাউদ্দিন এর বিরুদ্ধে। ওই ঘর কোন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ছাড়াই পিআইও মো. আলাউদ্দিন নিজেই ঠিকাদার হয়ে কাজ করাচ্ছেন বলেও জানাগেছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ সূত্রে ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সদর উপজেলার সাতপাড় কালিভিটায় নদীর পাড়ে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের দিকে। নির্মাণ কাজে নিম্ন মানের ইট-বালু-খোয়া ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যাপক কারচুপি ও অনিয়ম করে নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ। মেঝেতে প্লাস্টার ও বাথরুমের কাজে পোড়ামাটি সদৃশ ইট ও পুরাতন ব্যবহৃত ইটের খোয়া করে প্লাস্টারের কাজের প্রস্তুতি নিতে দেখা গেছে নির্মাণ শ্রমিকদের।

এছাড়াও ওই ঘরের আগেই তৈরি করা টয়লেটের স্ল্যাব তৈরি করার পরপরই তা ভেংগে পরে যায়। এমন নিম্নমানের কাজ হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছে এলাকাবাসী। এলাকাবাসী আরো জনান, আমাদের সামনেই দুই নম্বর ইট ব্যবহার করে এই ঘর তৈরি করতে দেখেছি। এই ঘরে মানুষ বসবাস করলে অল্পদিনেই তা ভেঙ্গে হতাহতের ঘটনা ঘটতে পারে।

এ বিষয়ে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. আলাউদ্দিন বলেন, ঘরের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। ওই ইটের খোয়া দিয়ে টয়লেটের রিং স্ল্যাব তৈরির জন্য রাখা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মহসিন উদ্দিনের মতামত জানতে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে ০১৭…৪০ একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন