আজ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম:
বিআরটিসি’র বিরুদ্ধে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে অপতৎপরতাকারীদের বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা। চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ালো বিআরটিসি। এডভোকেট সোহানা তাহমিনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা উচ্চ আদালতে। মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে ট্রাক প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবেন এড, সোহানা তাহমিনা। লৌহজংয়ে নানা আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত। মুন্সীগঞ্জে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ও বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী পালিত হল মহান বিজয় দিবস। লৌহজং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিজয় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার আয়োজন। লৌহজংয়ে আদালতের রায় অমান্য করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মানবেতর জীবন-যাপন ভুক্তভোগী পরিবার। লৌহজংয়ে ভাওতা দিয়ে লবণের বিনিময়ে সর্বস্ব লুট! লৌহজংয়ে ৫ জয়িতার সম্মাননা লাভ।
||
  • Update Time : অক্টোবর, ২১, ২০২৩, ১২:৪৪ অপরাহ্ণ

এশিয়ার সর্ববৃহৎ হাকিমপুর শিকদারবাড়িতে পূজা মণ্ডপে দর্শনার্থীদের উপছে পড়া ভিড়!

এস এম সাইফুল ইসলাম কবির: কারিগরদের নিপুণ হাতের ছোঁয়া আর তুলির আঁচড়ে সেখানে দেব-দেবীর প্রতিমা এমনভাবে সাজানো হয়েছে দেখলে মনে হবে জীবন্ত প্রতিচ্ছবি। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে দেশের সবচেয়ে বড় পূজার আয়োজন করা হয়েছে বাগেরহাট সদর উপজেলার হাকিমপুর শিকদার বাড়ি দুর্গা মন্দিরে। এই মণ্ডপে তৈরী করা হয়েছে ৫০১টি প্রতিমা। ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে দুর্গাপূজা আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পর দেশি-বিদেশী দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়ছে এই মণ্ডপে। আসছেন চিত্রজগৎ এর অনেকেই।

সরেজমিনে শিকদার বাড়ী পূজা মণ্ডপে গিয়ে দেখা যায়, করোনার কারনে দীর্ঘ ৩ বছর পর আবারও বড় পরিসরে বাগেরহাট সদর উপজেলার শিকদার বাড়ীতে দুর্গাপূজার আয়োজন করায় বাগেরহাট জেলাজুড়ে উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। শিকদার বাড়ীতে দুর্গা পুজার অবিচ্ছেদ্য প্রতিমা গুলোর সাথে বাড়তি প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে। ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ৬৫ ফুট কুম্ভ কর্ণ, মহাভারতের বিভিন্ন কাহিনী ও দেব-দেবীদের প্রতিমা। রয়েছে চোখ ধাদানো আলোক সজ্জাও। পূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পর সময়ের সাথে সাথে এ মণ্ডপে দেশি-বিদেশী দর্শনার্থীদের উপছে পড়া ভিড় লক্ষ করা যাচ্ছে। ইতি মধ্যে চিত্র নায়ক রিয়াজ এসে ঘুরে গেছেন শিকদার বাড়ী পূজা মন্ডপে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলা ও পার্শ্ববর্তি রাষ্ট্র ভারতের কলকাতা থেকেও আসছেন অনেকে।

খুলনা থেকে শিকদার বাড়ী ঘুরতে আসা সুমিতা দাস বলেন, এবারই প্রথম শিকদার বাড়ীতে আসা। অনেক নাম শুনেছি শিকদার বাড়ীর। তাই পরিবারের সকলের সাথে চলে এলাম। খুবই ভালো লাগলো।

সাতক্ষীরা থেকে ঘুরতে আসা তমা বিশ্বাস বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে শুনেছি শিকদার বাড়ীর কথা। এখানে এসে অবাক হয়েছি। এত প্রতিমা নিয়ে দেশের কোথাও দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয় কি না আমার জানা নেই। তবে সত্যি অসাধারন দেখে মুগ্ধ হয়েছি।

ভারতের কলকাতা থেকে ঘুরতে আসা অমিত সাহা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে হাকিমপুর শিকদার বাড়ীর পূজা মণ্ডপের কথা শুনে আসছি। কিন্তু আসা হয়নি। তাই এবার পূজার ছুটিতে পরিবারের সকলকে নিয়ে শিকদার বাড়ী ঘুরতে আসলাম। দুর্গাপূজার মূল প্রতিমার পাশাপাশি এখানকার অন্য যে প্রতিমা গুলো রয়েছে সেগুলো প্রতিটি মহাভারত এবং হিন্দু ধর্মের বিভিন্ন দেবদেবীর কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। যেটা আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। বাংলাদেশে আমার আত্মীয়-স্বজন রয়েছে, ইচ্ছা আছে আরো কয়েকদিন বাংলাদেশ দেখার।

শিকদার বাড়ীর পূজা মণ্ডপের আয়োজক ব্যবসায়ী লিটন শিকদার বলেন, আমাদের বাড়ীতে সর্বশেষ ২০১৯ সালে ৮শ ১টি প্রতিমা নিয়ে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছিলো। পরবর্তীতে করোনা কালীন সময়ে আমরা শুধুমাত্র দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা করেছি। যেটাকে ঘট পূজা বলা হয়। করোনা মহামারি থেমে যাওয়ায় নতুন করে ৫শ ১টি প্রতিমা নিয়ে এ বছর দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে হাজার হাজার দর্শনার্থীদের আগমন ঘটেছে এখানে। এছাড়া চিত্র-বিনোদন জগতের অনেক নায়ক এবং নায়িকার আগমন ঘটবে আমাদের এই পূজা মণ্ডপে। আশা করছি সবাই আনন্দের সাথে শিকদার বাড়ীর পূজা মন্ডপ উপভোগ করবেন।

শিকদার বাড়ীর পূজা মন্ডপ ঘুরতে এসে চিত্রনায়ক রিয়াজ বলেন, আমাদের দেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এ কারণে বন্ধু লিটন শিকদারের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে শিকদার বাড়ীতে ছুটে এসেছি। আমি সুস্থ থাকলে আগামীতেও শিকদার বাড়ীতে ঘুরতে আসবো। সকলকে আমার পক্ষ থেকে শারদীয় শুভেচ্ছা।

বাগেরহাট সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে,এম আজিজুল ইসলাম বলেন, শিকদার বাড়ীর পূজা মন্ডপকে কেন্দ্র করে পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ, আনসার ও ভলেন্টিয়ারসহ পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশা করছি হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন আনন্দের সাথে শারদীয় দুর্গাপূজা উপভোগ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন